< কমিশনকে বলব বহরমপুরের নির্বাচন যেন পিছিয়ে দেওয়া হয়, পর্যবেক্ষণ প্রধান বিচারপতির

কমিশনকে বলব বহরমপুরের নির্বাচন যেন পিছিয়ে দেওয়া হয়, পর্যবেক্ষণ প্রধান বিচারপতির

 

আগামী ১৩ মে, লোকসভা নির্বাচনের তৃতীয় দফায় ভোটগ্রহণ হবে মুর্শিদাবাদের বহরমপুরে। আর তার আগেই প্রাথমিক পর্যবেক্ষণ কলকাতা হাই কোর্টের প্রধান বিচারপতি টি এস শিবজ্ঞানমের। তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশনকে বলব, বহরমপুর লোকসভা কেন্দ্রের নির্বাচন যেন পিছিয়ে দেওয়া হয়। তিনি আরও বলেন, যেখানে মানুষ শান্তিপূর্ণভাবে নিজেদের উৎসব পালন করতে পারেন না, সেখানে এই মুহূর্তে ভোটের প্রয়োজন নেই। প্রসঙ্গত, রাম নবমীতে হামলা নিয়ে এনআইএ তদন্ত চেয়ে কলকাতা হাই কোর্টে মামলা দায়ের হয়েছে। এব্যাপারে রাজ্য সরকারকে হলফনামা আকারে রিপোর্ট দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে হাই কোর্ট। এক্ষেত্রে কেন্দ্র এবং রাজ্যের তদন্তকারী সংস্থাগুলি চাইলে হলফনামা দাখিল করতে পারে। এই মামলার পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য হয়েছে ২৬ এপ্রিল।

রাম নবমীর মিছিলকে কেন্দ্র করে গত ১৭ এপ্রিল বুধবার উত্তপ্ত হয়ে উঠেছিল মুর্শিদাবাদের রেজিনগর। সেখানে ছাদের ওপর থেকে মিছিলে ঢিল ছোড়োর অভিযোগ ওঠে। বোমাবাজিও করা হয় বলে অভিযোগ। এনিয়ে গোটা এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। সেই ঘটনায় কয়েকজন আহত হন। পরিস্থিতি সামাল দিতে র‍্যাফ পর্যন্ত নামাতে হয়।
এদিন সেই মামলার শুনানি হয় প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চে। শুনানির সময় মামলাকারীর আইনজীবী প্রধান বিচারপতির সামনে সেদিনের ঘটনা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন। প্রধান বিচারপতিও ওই দিনের অশান্তির ঘটনা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে বহরমপুরে ভোট পিছিয়ে দেওয়ার কথা বলেন। তার পর্যবেক্ষণ, ওই ঘটনায় প্ররোচনা দিল কে, তা জানা দরকার।

রামনবমী নিয়ে হাই কোর্টে বিচারপতি হরিশ ট্যান্ডন এবং বিচারপতি হিরন্ময় ভট্টাচার্যের ডিভিশন বেঞ্চে আরও একটি মামলা চলছে। সোমবার সেই মামলার শুনানিতে রামনবমীতে মুর্শিদাবাদের বিভিন্ন জায়গায় যে অশান্তি হয়েছে, তা ভিডিও ফুটেজ সংরক্ষণের নির্দেশ দেওয়া হয় ডিজিকে। এব্যাপারে রাজ্য সরকারকে মঙ্গলবার দুপুরের মধ্যে রিপোর্টও জমা দিতে বলেন। অন্যদিকে রাজ্য সরকার দাবি করেছে, পুলিশ স্বতঃস্ফূর্তভাবে এফআইআর দায়ের করেছে। আর মন্দির নয়, মসজিদেও হামলা হয়েছে। এছাড়া মুর্শিদাবাদের ১৩ টি মামলার তদন্তভার ইতিমধ্যে সিআইডি নিয়েছে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *