< বিদ্যা সমীক্ষা কেন্দ্রের উদ্বোধন করলেন মুখ্যমন্ত্রী ডঃ মানিক শাহ

বিদ্যা সমীক্ষা কেন্দ্রের উদ্বোধন করলেন মুখ্যমন্ত্রী ডঃ মানিক শাহ

বিদ্যা সমীক্ষা কেন্দ্রের উদ্বোধন করলেন মুখ্যমন্ত্রী ডঃ মানিক শাহ

বিদ্যা সমীক্ষা কেন্দ্রের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করলেন মুখ্যমন্ত্রী ডঃ মানিক শাহ

 

সুব্রত দে, ত্রিপুরা:-  ১২ই মার্চ, ২০২৪ ইং তারিখে আগরতলার শিশু বিহার উচ্চতর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের পুরাতন কমপ্লেক্সে সমগ্র শিক্ষা ত্রিপুরার উদ্যোগে রাজ্যের মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী মহোদয় বিদ্যা সমীক্ষা কেন্দ্রের উদ্বোধন করে শিক্ষা ক্ষেত্রে এক নতুন দিগন্ত উন্মোচন করেছেন। গুণগত উৎকর্ষমুখি এই সমীক্ষা কেন্দ্রের উদ্দেশ্য প্রতিটি শিশুকে তার স্বপ্ন পূরণে সমর্থ করে তোলা।

ভারতবর্ষের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী মহোদয়ের দূরদর্শী পথনির্দেশ এবং ত্রিপুরার মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী প্রফেসর (ডা.) মানিক সাহা মহোদয়ের বলিষ্ঠ নেতৃত্বে এই বিদ্যা সমীক্ষা কেন্দ্র রাজ্যের শিক্ষা জগতে এক ব্যাপক ইতিবাচক পরিবর্তন ঘটাবে। প্রাপ্ত তথ্য ও প্রযুক্তির ব্যবহার করে প্রতিটি শিক্ষার্থী কতটা শিখতে পারলো, সেটা সমীক্ষা ও বিশ্লেষণের মাধ্যমে শিখন ফলাফলে (Learning Outcome) প্রভূত উন্নতি ঘটানো এই বিদ্যা সমীক্ষা কেন্দ্রের প্রধান উদ্দেশ্য।

বিদ্যা সমীক্ষা কেন্দ্র প্রকৃতপক্ষে শিক্ষা দপ্তরের কমান্ড ও কন্ট্রোল সেন্টারের মতো কাজ করবে। সারা রাজ্য থেকে বিদ্যালয় সম্পর্কিত সব ধরনের সংগৃহীত তথ্য বা Data, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা বা Artificial Intelligence Machine Learning -এর সহায়তায় কল্পনাতীত দ্রুততার সঙ্গে বিশ্লেষণ করে কেন্দ্রীয় সরকার বা রাজ্য সরকারের বিভিন্ন শিক্ষাগত উন্নয়নমূলক প্রকল্পগুলোর রূপায়নের ক্ষেত্রে কী কী প্রতিবন্ধকতা বা ফাঁক-ফোকর রয়েছে সেগুলো সুস্পষ্টভাবে জানা সম্ভব হবে।

তারপর এই গ্যাপগুলো দূর করে সফলভাবে প্রকল্পগুলো রুপায়ন করা সম্ভব হবে। সাধারণ ভাবে বলা যায়, এই সমীক্ষা কেন্দ্রের মাধ্যমে দপ্তরের উন্নয়নমূলক প্রকল্পগুলোর রিয়েল টাইম মনিটরিং, ছাত্র-ছাত্রীদের নথিভুক্তি বা এনরোলমেন্ট, বিদ্যালয়ে উপস্থিতি, শিখন ফলাফল বা লার্নিং আউটকাম ট্র্যাকিং করা এবং শিক্ষায়তনিক সাফল্য বা একাডেমিক পারফরম্যান্স-এর উৎকর্ষ সাধন, শিক্ষক-শিক্ষিকাদের উপস্থিতি, তাদের দায়বদ্ধতা বৃদ্ধি, সশক্তিকরণ এবং শিক্ষা দপ্তরের আধিকারিক-দের সশক্তিকরণ ও সঠিক সিদ্ধান্ত গ্রহণে সহায়তা করা – এইসব বিভিন্ন ধরণের সময় সাপেক্ষ কাজ অত্যন্ত সীমিত সময়ে সমাধা করা সম্ভব হবে।

এই অনুষ্ঠানের উদ্বোধক তথা মুখ্য অতিথি রূপে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী, প্রফেসর (ডা.) মানিক সাহা মহোদয়। এছাড়াও সম্মানিত অতিথি হিসাবে ছিলেন রাজ্যের বিদ্যালয় শিক্ষা দপ্তরের বিশেষ সচিব, শ্রী রাভল হেমেন্দ্র কুমার, আই. এ. এস. এবং বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বুনিয়াদী শিক্ষা অধিকর্তা, শ্রীমতী স্মিতা মল এমএস, আই. এ. এস.। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ত্রিপুরার সমগ্র শিক্ষা মিশনের রাজ্য প্রকল্প অধিকর্তা, শ্রী নৃপেন্দ্র চন্দ্র শর্মা মহোদয়।

এই অনুষ্ঠানে বিদ্যা সমীক্ষা কেন্দ্রের উদ্বোধন ছাড়াও রাজ্যের মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী কর্তৃক ট্যাব বিতরণ কর্মসূচির প্রতীকী শুভ সূচনা করা হয়েছে। রাজ্যের সমগ্র শিক্ষা মিশনের উদ্যোগে প্রাথমিক শিক্ষকদের এবং “পি এম শ্রী” বিদ্যালয় হিসেবে মনোনীত বিদ্যালয়গুলোতে ডিজিটাল লাইব্রেরি স্থাপনের জন্য ট্যাব প্রদান করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আজকের এই অনুষ্ঠানে ২ জন প্রাথমিক শিক্ষক-শিক্ষিকা এবং ৩ টি পি এম শ্রী বিদ্যালয়ের প্রধানদের হাতে ট্যাব তুলে দেওয়া হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *